মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রামব্যাপি দৈনিক প্রিয় চন্দনাইশে নিয়োগ চলছে ।আজই আপনার সিভি আমাদের মেইল করুন । আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন ।

চন্দনাইশে পূর্ব জোয়ারা এলাকায় ঈদ-এ-মিলাদুন্নবী মাহফিল উদযাপন

মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম রুবেল (বার্তা সম্পাদক)
  • প্রকাশিত : শনিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৭৫ জন পড়েছেন

চন্দনাইশে পূর্ব জোয়ারা এলাকায় ঈদ-এ-মিলাদুন্নবী মাহফিল উদযাপন

চন্দনাইশে পবিত্র ঈদ-এ-মিল্লাদুনবী ও ফাতেহা ইয়াজদাহুম উপলক্ষে ঈদ-এ-মিল্লাদুনবী (দ:) অনুষ্টিত হয়েছে। গত ১০ ডিসেম্বর বাদে মাগরিব হতে পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডে পূর্ব জোয়ারা চৌধুরী মার্কেটের সামনে পূর্ব জোয়ারা ঈদ-এ-মিল্লাদুনবী (দ:) উদযাপন কমিটির উদ্যোগে এই আজিমুশশান নূরানী মিলাদ মাহফিল অনুষ্টিত হয়েছে। উক্ত মিলাদ মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন পূর্ব জোয়ারা হাজী সুলতান আহমদ নতুন জামে মসজিদের পেশ ঈমাম মাওলানা আলতাফুর রহমান আল কাদেরী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মক্কা আওয়ামী ফাউন্ডেশন এর সভাপতি আলহাজ্ব মোজাম্মেল হক। এতে প্রধান ওয়াজিন হিসেবে তকরির করেন বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন এশিয়া দ্বীনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসার আরবী প্রভাষক আল্লামা আবুল আসাদ মুহাম্মদ জুবায়ের রেজবী। বিশেষ আলোচক ছিলেন,রাবেতায়ে ওলামায়ে আহলে সুন্নাত বাংলাদেশ এর সভাপতি আল্লামা সেকান্দর হোসেন আল কাদেরী,কাজী এবাদুল্লাহ শাহ (রহ:) তৈয়বীয়া সুন্নীয়া মাদ্রাসার সহ-সুপার মাওলানা আবু ইউসুফ নুর আল কাদেরী,পূর্ব জোয়ারা হাজী সুলতান আহমদ নতুন জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুহাম্মদ মহিউদ্দিন ফাহিম আল কাদেরী। এসময় বক্তারা বলেন, কুতুবে রব্বানি মাহবুবে সুবহানি শায়খ সাইয়্যিদ আবদুল কাদের জিলানী (রহ.) (৪৭১-৫৬১ হিজরি) মুসলিম বিশ্বের পতন যুগে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেছিলেন ইসলামের শাশ্বত আদর্শকে। তার মাধ্যমেই ইসলাম পূর্বের অবস্থায় ফিরে এসেছিল। এ জন্যই তার উপাধি ছিল মুহীউদ্দীন। হজরত আলী (রা.)-এর শাহাদাতের ৭০০ বছর পর হজরত বড় পীরের মাধ্যমেই সেই জায়গা পূরণ হয়েছে।
১ রমজান ৪৭১ হিজরিতে ইরাকের অন্তর্গত জিলান জেলার কাসপিয়ান সমুদ্র উপকূলের নাইদ নামক স্থানে বড়পীর হজরত আবদুল কাদের জিলানী (র.) জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম হজরত আবু সালেহ মুছা জঙ্গি (র.) ও মাতার নাম সৈয়দা উম্মুল খায়ের ফাতেমা (র.)। স্রষ্টার চূড়ান্ত দীদার লাভের উদ্দেশ্যে ১১ রবিউস সানি ৫৬১ হিজরি রোজ সোমবার ইহজগৎ ত্যাগ করেন। বর্তমানে ইরাকের বাগদাদ শহরে তাঁর মাজার শরিফ রয়েছে। গাউসুল আজম বড়পীর হিসেবে তিনি সবার কাছে পরিচিত।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এই পোর্টালের কোনো লেখা বা ছবি ব্যাবহার দন্ডনীয় অপরাধ
কারিগরি সহযোগিতায়: ইন্টাঃ আইটি বাজার
shuvo
%d bloggers like this: