বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৫১ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি
চট্টগ্রামব্যাপি দৈনিক প্রিয় চন্দনাইশে নিয়োগ চলছে ।আজই আপনার সিভি আমাদের মেইল করুন । আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন ।

চন্দনাইশে গাছবাড়িয়া স্কুলের ১৮ ব্যাচের আনন্দ ভ্রমন

মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম রুবেল (বার্তা সম্পাদক)
  • প্রকাশিত : রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১২৫ জন পড়েছেন

চন্দনাইশে গাছবাড়িয়া স্কুলের ১৮ ব্যাচের আনন্দ ভ্রমন

দফায় দফায় লকডাউনে দেশের সাধারণ নাগরিকদের যাপিতজীবন প্রায় জনজীর্ণ হয়ে পড়েছে। এক করোনা ভাইরাসের ভয়ে ভ্রমণ প্রিয় মানুষগুলো ঘরে থাকতে থাকতে আরও কত ভাইরাস যে শরীরে বাসা বেঁধেছে- এ খবর ক’জনাই বা আর রেখেছে। বুঝবে গিয়ে পড়ে যখন গভীর ক্ষত সৃষ্টি করিবে। এই জনজীর্ণ জীবনকে আনন্দময় করতে বনভোজনের আয়োজন করেছে গাছবাড়িয়া সরকারি নি:গৌ.উচ্চ বিদ্যালের ১৮ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। আজ ৫ সেপ্টেম্বর সকালে উপজেলা হাশিমপুর পাহাড়ি এলাকায় কেন্দ্রীয় আ.লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান উপ-কমিটির সদস্য আবদুল কৈয়ুম চৌধুরীর অর্থায়নে এই বনভোজনের আয়োজন করা হয়। এই সময় উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা মাসুদ চৌধুরী, এম জাহেদ চৌধুরী, বরাতুল হাছান বাবু,মো.এমদাদুল হক রিয়াজ,মো.আরাফাত,মো. তানভীর,মো.জিহাদ,মো.নয়ন,মো.মোরশেদ,মো.ইয়াছিন,মো.মুবিন, মো.ইসমাইল, মো.আরিফ, মো.মিজান মো.আরমান, মো.শাকিব,মো. সাজ্জাদ, মো.লিয়াকত, মো.নুর মোহাম্মদ,মো.মিনহাজ,মো.সাইফু প্রমুখ। এই সময় তারা বলেন, জীবন সুখীময় করতে ও মনকে সতেজ করতে ভ্রমনের কোন বিকল্প নাই। স্কুল জীবনের সঙ্গীদের একসাথে করতে আজকের এই আয়োজন। আজকের এই বনভোজনের মাধ্যমে যেটি সব চেয়ে বেশি নজরে পড়েছে তা হলো প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। এখানে এসে দেখি চারপাশে পাহাড় আর পাহাড়। যেখানে একটা সময় মনে হবে এই বুঝি নীল আসমানে ভেসে বেড়ানো শুভ্র মেঘ মালা ছুঁয়ে ফেলব। পাহাড় থেকে পাহাড় দেখা। বর্ষা মৌসুম হওয়ায় পাহাড়গুলো গাঢ় সবুজে মোড়ানো। গাছের পাতাগুলো ছিল বৃষ্টি ভেজা চকচকে। দুই চোখ যতদূর যায়, শুধু পাহাড় আর লেখ। মূলত পাহাড় ও লেকে বসবাস করা এখন ভ্রমণপিপাসুদের জন্য অন্যতম দর্শনীয় স্থান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এই পোর্টালের কোনো লেখা বা ছবি ব্যাবহার দন্ডনীয় অপরাধ
কারিগরি সহযোগিতায়: ইন্টাঃ আইটি বাজার
shuvo
%d bloggers like this: