বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে চন্দনাইশ উপজেলা ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

চন্দনাইশ

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে চন্দনাইশ উপজেলা ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদ এবং জঙ্গিবাদ, মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ লাটি মিছিল করেন চন্দনাইশ উপজেলা ছাত্রলীগ। গত রবিবার (৬ ডিসেম্বর) বিকালে গাছবাড়িয়া, কলেজ গেইটের সামনে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা মো.জাহিদুর রহমান চৌধুরী’র সভাপতিত্বে এই সময় উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক দেবু দাস,ও গণশিক্ষা বিষয়ক উপ-সম্পাদক প্রিয়ম বিশ্বাস আরো উপস্থিত ছিলেন মো.আলমগীরুল ইসলাম চৌধুরী, জাহিদুল ইসলাম আবির ,ইয়াছিন আরফাত ,আলমগীরুল ইসলাম, ওমর ফারুক চৌধুরী, সম্ম্রাট চৌধুরি ,সাজ্জাদ হোসেন ,কাজী রুমি, হোসেন সাইমন সোহেল রানা, আলিফ, জিয়াদ হাসান, সাজ্জাদ হোসেন নিশান, সৈয়কত, দিদারুল আলম তারেক, আরিফুর রহমান, রবিউল হোসেন, সানি চৌধুরি, সাকিব রিফাত, মারুফ, মাসুদ, আবিদ, রাকিব, সাকিব, ফরিদ প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা বলেন, ১৯৭৫ সালে যারা বাঙ্গালীর মহান মুক্তিযুদ্ধের অগ্রনায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারকে হত্যা করেছে, বর্তমানে তাদের উত্তরসুরীরাই কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের মত জঘন্য অপরাুতধ করেছে। তারা ধর্মকে অপরাজনীতির হাতিয়ার বানিয়ে সরলমনা বাঙ্গালী জাতিকে ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা করছে। ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। স্বাধীনতার মহান স্থপতিকে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে অবিস্মরনীয় করে রাখতেই দেশের বিভিন্ন স্থানে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য এবং প্রতিকৃতি নির্মাণ করেছে বর্তমান সরকার। সম্প্রতি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে আঘাত করে বস্তুতপক্ষে কোটি কোটি মুজিবপ্রেমীর অন্তরে আঘাত করেছে পঁচাত্তরের মীর জাফরের প্রেতাত্মারা। তাই যারা এই জঘন্যতম কাজটি করছে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

Leave a Reply