রাস্তার বেহাল অবস্থা, এলাকার মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে

চন্দনাইশ

রাস্তার বেহাল অবস্থা, এলাকার মানুষের দুর্ভোগ

চন্দনাইশ উপজেলার কাঞ্চনাবাদ ইউনিয়নে অধিকাংশ সড়কই ভাঙ্গা। দীর্ঘদিনেও সড়কের কোনো উন্নয়ন না হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতেই ভেঙ্গে গর্ত হয়ে যায় ঘাটপাঠান পাড়া সংলগ্ন রাস্তাটি। ফলে ভোগান্তিতে রয়েছেন ওই এলাকার অন্তত ৫ হাজার মানুষ।

ভালো রাস্তা না থাকায় জনবসতির শুরু থেকে এখন পর্যন্ত ভাঙ্গা রাস্তায় চলাচল করছেন তারা। মেরামতের অভাবে তাও এখন চলাচল অযোগ্য। মেরামত করে চলাচল যোগ্য করে তোলার প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, ইউপি পরিষদ (রৌসনহাট) থেকে মুস্তান আলী শাহ্ মাজার গেট পর্যন্ত রাস্তা ঠিক থাকলেও ঐ স্থান থেকে ছরাখুল পর্যন্ত প্রায় ৭৪৬ ফুট রাস্তা তারমধ্য ২৩০ ফুট রাস্তা মেরামত হলেও ৫১৬ ফুট রাস্তার বেহাল অবস্থা।

অপরদিকে, আব্বাস পাড়া সব কিছু পাড়ার লোকজন এই রাস্তা দিয়ে হাটবাজারে যাতায়াত করে এবং প্রতিদিন শতাধিক শিক্ষার্থী, কৃষক ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ এই রাস্তায় চলাচল করে।

স্থানীয়রা জানান, শুকনো মৌসুমে যাতায়াত ব্যবস্থা ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল ও টমটম ব্যবহার হয়। অনেক কষ্টে ভাঙ্গা চুরা রাস্তায় বেশি ভাড়া দিয়ে যাতায়াত করে এলাকার মানুষ। বর্ষা শুরু হলে বন্ধ হয়ে যায় ওই সব বাহন। মানুষকে চলাচল করতে হয় পায়ে হেঁটে। সামান্য বৃষ্টির হলে পানি জমে গর্ত হয়ে ভেঙ্গে যাতায়াত অযোগ্য হয়ে পরে রাস্তাটি।

স্থানীয় সমাজ সেবক সরোয়ার কামাল জানান, দীর্ঘদিনেও রাস্তা উন্নয়ন বা সংস্কার করা হয়নি। বৃষ্টি হলে রাস্তার অবস্থা নদীর মতো হয়ে যায়। রাস্তা দিয়ে যানবাহন চলাচল তো দূরের কথা, পায়ে হেঁটে মানুষ চলাই কঠিন। রাস্তার বেহাল দশার কারণে স্কুল, কলেজ, মাদরাসার শিক্ষার্থীদের চরম কষ্টে প্রতিষ্ঠানে যেতে হচ্ছে। এ যেন ভোগান্তির শেষ নেই। রাস্তাটি উন্নয়ন বা সংস্কার হলে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও কলেজ শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষ চলাচলের পথ সুগম হবে।

স্থানীয় প্রতিনিধি আব্দুর রশিদ বলেন, রাস্তাটি ভাঙ্গা থাকায় এলাকার মানুষকে খুব দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সবদিক বিবেচনায় এই রাস্তাটি অতি দ্রুত উন্নয়ন করা দরকার।

ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সড়ক উন্নয়নের দাবি জানাচ্ছেন এলাকাবাসী। রাস্তাটি দীর্ঘদিন ভাঙ্গা ছিলো তবে ২৩০ ফুট রাস্তা মেরামত করা হয়েছে। ইউপি পরিষদের পর্যাপ্ত পরিমান পাউন্ড না থাকায় বাকি ৫১৬ ফুট রাস্তা মেরামত করা হয়নি। তবে সরকার এখন যেভাবে উন্নয়নের কাজ করছে, তাতে কোনো রাস্তাই অনুন্নত থাকাবে না।

Leave a Reply