চন্দনাইশে ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের ছাগল উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পের প্রদর্শনী অনুষ্ঠান

চন্দনাইশ

চন্দনাইশে ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের ছাগল উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পের প্রদর্শনী অনুষ্ঠান

মো.আমিনুল ইসলাম রুবেল,বার্তা সম্পাদক

চন্দনাইশ উপজেলা প্রাণি সম্পদ দপ্তরের আয়োজনে এবং ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের ছাগল উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্প ,ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের ছাগলের মেলা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) সকালে মেলা উপলক্ষে প্রাণী সম্পদ কার্যালয়ের সামনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ অফিসার ডাঃ মোহাম্মদ আরিফ উদ্দিন। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল জব্বার চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নিবার্হী অফিসার মো. ইমতিয়াজ হোসেন, কৃষি অফিসার স্মৃতি রানী সরকার, সহকারী প্রোগ্রামার খালেদ মোশাররফ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার জহিরুল ইসলাম। কৃষিবিদ শাহনাজ ফেরদৌসী সেজুতি সঞ্চালনায় অনুষ্টানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডাঃ মোহাম্মদ ফয়সাল, উপসহকারী প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আজিজ আহমদ। অনুষ্টানে বক্তারা বলেন, একটি অস্বচ্ছল পরিবারকে স্বচ্ছল করতে ছাগল পালনের বিকল্প নাই। জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন ও আত্মনির্ভরশীল জাতিগঠনে বিভিন্ন প্রকল্প নিয়েছেন। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগল উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্প এমনই একটি প্রকল্প। ছাগল পালন একটি লাভজনক পেশা। এটি গরিবের গাভি বলেও পরিচিত। স্বল্পআয়ের মানুষ কিংবা অল্প বিনিয়োগে সক্ষম ব্যক্তিরা অল্প জায়গায় খুব সহজেই ছাগল পালন করে স্বাবলম্বী হতে পারেন। ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের ছাগল আমাদের দেশের নিজস্ব জাত। এই জাতের ছাগলের মাংস সুস্বাদু এবং চামড়া উন্নতমানের হওয়ায় দেশে-বিদেশে সমানভাবে জনপ্রিয়। ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের ছাগল কষ্টসহিষ্ণু, দ্রুতবর্ধনশীল এবং বছরে দুবার বাচ্চা দেয়। প্রতিবারে এই ছাগল দুই বা ততোধিক বাচ্চা দেয় এবং দ্রুত বাজারজাতকরণের উপযোগী বলে এ জাতের ছাগল পালন লাভজনক।

Leave a Reply